ভুয়া নিয়োগ বাণিজ্য : মূল হোতা ও সহযোগী আটক

Feature Image

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রার্থীদের কাছে অবৈধভাবে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গতকাল শুক্রবার যশোর সদর উপজেলার বিমানবন্দর এলাকা থেকে দুই প্রতারককে আটক করে যশোর কোতয়ালী মডেল থানায় হস্তান্তর করেছে বিমান বাহিনী কর্তৃপক্ষ। বিমান বাহিনীতে বিভিন্ন পদে চাকরি দেওয়ার নামে জনসাধারণের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত প্রতারক চক্রটি।

আইএসপিআর জানায়, শুক্রবার আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিমান বাহিনীর সদস্যরা এ চক্রের মূল হোতা ও তার সহযোগীকে আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে কয়েকটি ভুয়া নিয়োগপত্র, দুইটি ওয়াকিটকি সেট এবং বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নামে দুইটি সিলমোহর উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ভুয়া নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তারা তাদের সাথে থাকা ওয়াকিটকি প্রদর্শন করে নিজেকে কখনও পুলিশ সদস্য, কখনও ডিবি সদস্য, কখনও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য, আবার কখনও বা সামরিক বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে জনগণের সাথে প্রতারণা করত বলেও স্বীকার করে।

আটক হওয়া এ চক্রের মূল হোতা খুলনা জেলার তেরোখাদা থানার হাড়িখালি গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মো. অহিদুজ্জামান (৪০) এবং তার সহযোগী ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা থানার কাজীপাড়া গ্রামের মীর মনিরুল ইসলামেরর ছেলে মীর আশরাফুল ইসলাম (২৭)।

আইএসপিআর আরো জানায়, প্রতারক চক্রটি যশোর ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জেলার অসহায় বেকার চাকরি প্রার্থীদের নানান অপকৌশলে বিমান বাহিনীর বিভিন্ন পদে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ভুয়া নিয়োগপত্র প্রদানের মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিত। এই চক্রটি আনুমানিক ১০০/১৫০ জন প্রার্থীকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নয়। বিমান বাহিনীতে টাকার বিনিময়ে চাকরি প্রাপ্তির কোনো সুযোগ নেই বরং এটা সম্পূর্ণই প্রতারণা বলে জানিয়ে আইএসপিআর এ ধরণের প্রতারণার হাত থেকে সকল আগ্রহী প্রার্থী ও তাদের সংশ্লিষ্ট অভিভাবকদের সাবধান থাকার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করে।

আরো খবর »