পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ব্যবসায়ী লাঞ্চিত রবিউল হক খানের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবীর অভিযোগ

Feature Image

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ঃ
কুষ্টিয়া মিলপাড়ায় আব্বাস বেডিং ষ্টোর নামের লেপ তোষক প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের দীর্ঘদিনের পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে স্বত্বাধিকারী লাঞ্চিত হয়েছেন। ঘটনার ২ মাস অতিবাহিত হলেও এখনো পর্যন্ত প্রশাসনিক ভাবে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভুক্তভোগী মৃত জলিল জর্দারের ছেলে আব্বাস জর্দার জানান, মিলপাড়া মোহিনী মিলের ১ নং গেটের পাশে আব্বাস বেডিং নামে তার লেপ তোষকের দোকান থেকে কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহের মৃত আনছার খাঁর ছেলে খলিল খাঁ বেশ কয়েকবারে প্রায় ৯০ হাজার টাকার মাল ক্রয় করেন। পূর্ব পরিচিত হবার কারনে তিনি তাকে বাঁকীতে মাল বিক্রি করেন। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও খলিল খাঁ তার পাওনা টাকা পরিশোধ না করায় তিনি বিভিন্ন মারফত তাকে খবর দেন এবং টাকা পরিশোধের জন্য চাপ সৃষ্টি করেন। গত ১৪ আগষ্ট খলিল খাঁ তার দোকানে আসলে তিনি টাকা পাওনা টাকা দাবী করেন এসময় তার সাথে কুষ্টিয়া মিলপাড়ার মৃত মিনহাজ মৌলভীর ছেলে রবিউল হক খান উপস্থিত ছিলেন। তারা দুজনে মিলে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন এবং দোকানের মধ্যে ঢুকে বাঁকী আদায়ের খাতা নিয়ে চলে যান এবং বিভিন্ন ভাবে হুমকী প্রদর্শন করে। এসময় রবিউল হক খান এটা তার এলাকা এখানে ব্যবসা করতে গেলে চাঁদা দিতে হবে বলেও হুমকী দেন। এ ব্যাপারে তিনি খলিল খাঁ ও রবিউল হক খানের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া সদর থানায় অভিযোগ আকারে দরখাস্ত প্রেরন করেন। তিনি আরো জানান দরখাস্ত প্রেরনের ২ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি অপরাধীদের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম জানান, খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো খবর »