ইন্টারন্যাশনাল মেকাপ আর্টিস্ট অঞ্জনা রায় ভারত জয় করে এবার বাংলাদেশে

Feature Image

নিজস্ব প্রতিনিধি: হাটাহাটি পা-পা করে মেকাপ আর্টিস্টে ভারত বিশ্ব জয় করে একার অঞ্জনা রায় আসছে বাংলাদেশে।নিজের অর্জিত ধ্যান জ্ঞান প্রতিভা অভিজ্ঞতা দিয়ে একার জয় করতে চাই বাংলাদেশী মেকাপ আর্টিস্ট লার্নারদের।সংক্ষিপ্ত আকারে তার কিছু কথা।

ইন্টারন্যাশনাল মেকাপ আর্টিস্ট অঞ্জনা রায় এর জন্মের পরে জীবনের চলার পথ শুরু হয়েছিল সম্পূর্ণ অন্যরকম ভাবে যার সঙ্গে মেকাপ জগতের কোনো মিল ই ছিলনা।
তার বয়স যখন মাত্র ৩ বছর। তখন তিনি প্রথম সঙ্গীত শিক্ষার জগতে পদার্পণ করেন। তার পরে আস্তে আস্তে তিনি শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে সাফল্য অর্জন করতে থাকেন। এর পরে নজরুল সঙ্গীত এবং লোকসঙ্গীতের ওপরে ও সমান ভাবে ডিপ্লোমা এবং ডিগ্রী লাভ করেন।

জীবনে তিনি কখনই কোনো প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান ছাড়া দ্বিতীয় স্থানে থাকেন নি। তার একটা সঙ্গীত শিক্ষার স্কুল ও ছিল। তেমন ভাবে তিনি লেখা পড়া তেও সমান ভাবেই সাফল্য অর্জন করেছে। তিনি হিস্টোরি নিয়ে অনার্স এবং এম. এ. করেছেন।

এর পরে তিনি বৈবাহিক জীবনে আবধ্য হলেন। তার পর শারীরিক কিছু অসুস্থতা এবং ডক্টরের নির্দেশ অনুযায়ী সঙ্গীত জগৎ থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন রাখতে বাধ্য হয়েছিলেন।
এর পরে বিশ্ববিখ্যাত স্বনামধন্য বিউটি এক্সপার্ট শেহনাজ হুসেইন এর কাছ থেকে বিউটিশিয়ান এর ডিপ্লোমা এবং ডিগ্রী কোর্স কমপ্লিট করেন।

এর পরেই তিনি প্রফেশনাল একটা বিউটি পার্লার খুলে ফেলেন। তারপর দক্ষতা এবং সুনাম এর সাথে স্কিন, হেয়ার এবং মেকাপ নিয়ে কাজ শুরু করেন। এবং খুব অল্প দিনের মধ্যেই তিনি তার কাজের জন্যে, মানুষের বিশ্বাস, ভালোবাসা এবং আস্থা রাখতে সক্ষম হন।
এর পরে তিনি মেকাপ এর প্রতি আলাদা রকম ভালোবাসা অনুভব করতে থাকেন। এই আলাদা রকম ভালোবাসার জন্যেই আজ তিনি আমাদের মাঝে একজন স্বনামধন্য ইন্টারন্যাশনাল হেয়ার অ্যান্ড মেকাপ আর্টিস্ট হিসেবে পরিচিত। মেকাপ জগতের জাদুগর অনুরাগ আরিয়া বর্ধনের কাছ থেকে তিনি মেকাপ এর ডিপ্লোমা এবং ডিগ্রী কোর্স কমপ্লিট করে যোগ্য শিষ্যা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেন।

আজ তার একটা বিউটি পার্লারের পাশাপাশি একটা মেকাপ স্টুডিও তিনি গড়ে তুলেছেন। যেখানে তিনি হেয়ার এবং মেকাপ এর ( Basic to Advanced) ট্রেনিং প্রদান করেন এবং সেই স্টুডেন্টদের কোর্স শেষে তিনিই সবাইকে ISO Certificate দিয়ে থাকেন। অসহায় এবং দুস্ত মানুষের জন্যে তিনি মেকাপ এবং পার্লার জগতে বিনা পারিশ্রমিকে কাজ করে থাকেন।

তিনি সুনামের সঙ্গে এই মেকাপ জগতে গত ১৮ বছর ধরে একাধারে কাজ করে যাচ্ছেন।
আজ তিনি মেকাপ এবং হেয়ার জগতের একজন সুপ্রতিষ্ঠিত এক্সপার্ট হিসেবে পরিচিতি অর্জন করতে সফল হয়েছেন।
আগামী দিনগুলোতে তার একটিই স্বপ্ন, তিনি যেন মেকাপ ইন্ডাস্ট্রিতে মানুষের জন্যে ভালো কিছু করে যেতে পারেন।

আরো খবর »