নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মানবের তরে ফাউন্ডেশন

Feature Image

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি এর স্থাপত্য বিভাগ এর প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র ছাত্রীদের দ্বারা তৈরী ফাউন্ডেশন “মানবের তরে” এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহবায়ক অর্কিটেক্ট মুস্তফা তারিক হাদী।
করোনা পরিস্থিতি এর শুরু থেকে নিম্ন এবং মধ্য আয়ের মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছে এই ফাউন্ডেশনটি। ফাউন্ডেশন এর প্রধান উপদেষ্টা এবং সর্বাত্মক সহায়তায় আছেন বিশিষ্ট নগর পরিকল্পনা বিদ স্থপতি ইকবাল হাবিব, বিশিষ্ট স্থপতি তানিয়া করিম, বিশিষ্ট স্থপতি নুরুর রহমান খান, আর্কিটেকচার ডিপার্টমেন্ট এর এলামনাই এসোসিয়েশন এবং বর্তমান ছাত্র ছাত্রী সহ অনেক স্থপতি এবং এবং বিভিন্ন পেশার হাজারো মানুষ।
এই বিষয়ে মানবের তরে ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহবায়ক অর্কিটেক্ট মুস্তফা তারিক হাদী বলেন-
আমরা প্রথম ধাপে ২৭০ টি নিম্ন আয়ের পরিবার, ৫০ জন পথশিশু, ৪৮ টি মধ্য আয়ের পরিবার কে ২০ দিনের বাজার উপহার প্রদান করেছি, এছাড়াও মিরপুর এ একটি হাসপাতালে কিছু পিপিই প্রদান করেছি।

দ্বিতীয় ধাপে ২১৭ টি নিম্ন আয়ের এবং ৩৮ টি মধ্য আয়ের পরিবার কে ২০দিনের বাজার উপহার প্রদান করেছি।

তৃতীয় ধাপে সর্বমোট ৩৪১ টি পরিবার কে বাজার উপহার দিয়েছি।

চতুর্থ ধাপে ৩২৭ টি পরিবার কে বাজার উপহার দিয়েছি।

এই কার্যক্রম এর মধ্যে ২৪০ টি পরিবার কে প্রতি ধাপে আমরা উপহার দিয়েছি যাতে তাদের আর অন্য কোথায় চাইতে না হয়।

পরবর্তীতে আমরা
রোজার ঈদে ৪৩৯ পরিবারে ঈদের বাজার করে দেই ,সাভারে ৩১০ টি গারো পরিবার কে আমরা ২ মাসের সমপরিমাণ বাজার করে দেই।
বরগুনায় আম্পান এ ক্ষতিগ্রস্থ ৩৫০ টি পরিবারে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করি, কুড়িগ্রামে ৪০০ বন্যা দুর্গত পরিবারে সাহায্য পৌঁছাই। ৩১৫ টি কম্বল বিতরণ করি রাস্তায় রাত্রিযাপন করা মানুষের মাঝে।। করোনা এর ২য় ঢেউ এ আমরা এ পর্যন্ত আরো ৩৮৭ টি পরিবারে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্য পৌঁছে দেই।
কুরবানী এর ঈদ এর আগে এই চলমান লকডাউন চলাকালিন সময়ে ৪৬৫ টি পরিবারের কাছে ২৫ দিনের বাজার পৌঁছে দিয়েছি আমরা।

এভাবেই আমরা যে সব মানুষ গুলো কাউকে তাদের এই করোনা সৃষ্ট অসহায় অবস্থা এর কথা বলতে পারেন না সেই সব মানুষের পাশে থাকতে চাই।।

সব শেষে মানবের তরে ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা ও আহবায়ক অর্কিটেক্ট মুস্তফা তারিক হাদী আমাদের দেশের বিত্তমান মানুষের কাছে অনুরোধ করেন , অন্তত পক্ষে একজন মানুষের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করুন, অন্তত একজনের মুখের হাসি এর কারণ হন আপনি। এই মূলমন্ত্র নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই অনেক দূরে। আপনি এগিয়ে চলুন আমাদের সাথে।

আরো খবর »