ক্ষমতার উৎস কোথায় খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপনের

Feature Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রোগীর সাথে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকার এর বিরুদ্ধে।

এদিকে মঙ্গলবার বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম এ সংলাপের আয়োজনে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন দুর্ব্যবহারও দুর্নীতির শামিল। কিন্তু সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বীর দাপটে দুর্ব্যবহার করাই ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকারের কাজ।

জানা যায়, গত সোমবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে যান বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি খোকসা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক পুলক সরকার। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ কামরুজ্জামান সোহেলের পরামর্শ অনুযায়ী করোনা সিম্পল দিতে যান হাসপাতালের ফ্লু কর্নারে। ফ্লু কর্নারে দায়িত্বে ছিলেন ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকার। করোনা পরীক্ষা করার সরকার নির্ধারিত ফি ১০০ টাকা হলেও সেখানে দায়িত্বরত ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকার সরকারি নির্ধারিত ফি বাদে দাবি করেন অতিরিক্ত আরো ১০০ টাকা । অতিরিক্ত টাকা দিতে অপারগতা জানালে স্বপন সরকার বলেন টাকা না দিলে রেজিষ্ট্রেশন করতে পারব না। অনেক অনুরোধ করার পরেও তিনি রেজিষ্ট্রেশন করেন না। পরে একটি ফরম ছুড়ে ফেলে দেন বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি খোকসা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক পুলক সরকারের মুখের উপর। বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি খোকসা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পুলক সরকার ফরম পূরণের জন্য কলম চাইলেও তিনি দেন না। পরে পুলক সরকারের সহধর্মিণী স্কুল শিক্ষক বাইরে থেকে কলম এনে দিলে তিনি ফরম পূরণ করে সিম্পল দেন। তবে দায়িত্বরত স্বপন সরকার সিম্পল না নিয়ে বাইরের এক মহিলা দিয়ে (যার প্রাতিষ্ঠানিক কোন প্রশিক্ষণ নাই) তার ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে সিম্পল নেন।

একজন সরকারি চাকরিজীবি এহেন আচরণে মর্মাহত বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি খোকসা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক পুলক সরকার। তিনি এই দুর্নীতিবাজ ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকার এর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন।

এবিষয়ে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ডেন্টাল টেকনিশিয়ান স্বপন সরকারের কাছে অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এখন গাড়িতে আছি কথা বলব না আপনার সাথে।

এবিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ কামরুজ্জামান সোহেল বলেন, বিষয়টি আমি এখনো জানিনা। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো খবর »