দিনের শেষে ৬ ওভারে ৩ উইকেট হারাল বাংলাদেশ

Feature Image

ডারবান টেস্টে ২৭৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে গেছে বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৯ রান করা সাদমান আজ ‘ডাক’ মেরে ফেরেন। তামিম ইকবালের অনুপস্থিতির সুযোগ কাজে লাগাতে পারলেন না এই ওপেনার। দলীয় ৪ রানেই প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

আর প্রথম ইনিংসে অসাধারণ সেঞ্চুরি করা মাহমুদুল হাসান জয়ও আজ পারেননি। কেশব মহারাজের বলে বোল্ড হওয়ার আগে তার সংগ্রহ মাত্র ৪ রান। অধিনায়ক মমিনুল হকও ব্যর্থতার ধারা অব্যাহত রেখে ফেরেন ২ রানে। ৬ ওভারে ৩ উইকেটে ১১ রান তুলে দিন শেষ করে বাংলাদেশ। শান্ত ৫* এবং মুশফিক ০* রানে অপরাজিত আছেন। জয়ের জন্য আগামীকাল পঞ্চম দিনে প্রয়োজন আরো ২৬৩ রান। ড্র করতে হলে খেলতে হবে পুরো ৯০ ওভার।

চতুর্থ দিনে ৬৯ রানে এগিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে দক্ষিণ আফ্রিকা। ওপেনিং জুটিতে আসে ৪৮ রান। এবাদত হোসেনের বলে ৮ রান করা সারেল এরুইয়া লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন। আম্পায়ার আঙুল না তুললেও রিভিউ নিয়ে জিতে যায় বাংলাদেশ। ৭৩ বলে ফিফটি তুলে নেন অধিনায়ক ডিন এলগার। তবে তার আগে ইবাদত হোসেন আর মেহেদী মিরাজের বলে দুইবার জীবন পেয়েছেন তিনি। সহজ ক্যাচ ফেলেছেন ইয়াসির আলী ও নাজমুল হোসেন শান্ত। ৬৮ রানের এই জুটি ভাঙেন তাসকিন আহমেদ। কাঁধের ব্যথায় আক্রান্ত এই পেসারের আজ বল করারই কথা ছিল না।

নিজের তৃতীয় ওভার করতে এসে তিনি ৬৪ রান করা এলগারকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন। যদিও আম্পায়ার আবেদনে সাড়া দেননি। রিভিউ নিয়ে জিতে যায় বাংলাদেশ। প্রোটিয়া দুর্গে তৃতীয় আঘাত হানেন মেহেদী মিরাজ। দলীয় ১২৬ রানে তার ঘূর্ণিতে মাহমুদুলের তালুবন্দি হন কিগ্যান পিটারসেন (৩৬)। এরপর দ্রুতই উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা। টেম্বা বাভুমা (৪), কাইল ভেরাইনার (৬), মুল্ডারকে (১১), কেশব মহারাজ (৫) হন তাসকিনের শিকার। নুরুলের দারুণ থ্রোতে সিমন হার্মার (১১), লিজার্ড উইলিয়ামস (০) টপাটপ আউট হন। ৩টি করে উইকেট নেন মিরাজ ও এবাদত। তাসকিন নিয়েছেন ২টি।

আরো খবর »